সেই চিলি, সেই মেসি

Jun 25, 2024 - 15:51
 0  1
সেই চিলি, সেই মেসি

ক্ষণে ক্ষণে গল্পের রঙ বদলায়। জীবনের রঙও তাই। আট বছর আগের মতো আমেরিকায় চিলির বিপক্ষে হারের কারণে আর্জেন্টিনার জার্সিতে না খেলার সিদ্ধান্ত নেন লিওনেল মেসি। 27 জুন, 2016 তারিখে নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে, কোপা আমেরিকার ফাইনালে হারের দুঃখে ফরোয়ার্ডের চোখ ও নাক জলে ভেসে ওঠে। তার কান্নার দৃশ্য সমালোচকদের আনন্দিত করেছিল, কিন্তু ভক্তদের, এমনকি তার সতীর্থদেরও বিস্মিত করেছিল।

অনেক নাটকীয়তার পর আবারও দেশের জার্সিতে খেলার সিদ্ধান্ত নিলেন মেসি। মহাকাব্যটি আট বছরের ব্যবধানে রচিত হয়েছিল। তিনি শুধু ক্লাবের জার্সিতেই সফল হননি, আর্জেন্টিনার হয়ে কোপা আমেরিকাও জিতেছেন। এর বাইরে ২০২২ সালে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার থেকে বিশ্বকাপের সোনালি ট্রফি নিয়েছিলেন। শুধু আর্জেন্টিনাই নয়, গোটা বিশ্ব এখন মেসির ব্যান্ডানা পরে। ফুটবল জীবনে সবকিছু থাকার পরও গল্পের পাণ্ডুলিপিতে মেসি এখনো শূন্য পাতা। আট বছর আগের হিসাব মেটাতে এমন মঞ্চের অপেক্ষায় ছিলেন আটবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। নিউ জার্সিতে চিলিতে যেখানে কেঁদেছেন, বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় একই মঞ্চে পরিচিত প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হচ্ছেন মেসি।
যে মঞ্চে পেনাল্টি শুটআউটে গোল করতে পারেননি, সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের মেটলাইফ স্টেডিয়ামে নতুন গল্প লেখার হাত ধরে সর্বকালের সেরা ফুটবলার। চিলিকে হারাতে পারলে কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালেও নিশ্চিত হয়ে যাবে আর্জেন্টিনা। মেসির ইতিহাসও মুক্তি পাবে! 24 জুন তার 38তম জন্মদিন উদযাপন করা মেসির জন্য এটি সেরা মুহূর্ত।

কোপা আমেরিকার ফাইনালের পর থেকে ছয়বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। যেখানে আর্জেন্টিনাকে একবারও হারাতে পারেনি চিলি। মেসির তিনটি জয়ের বিপরীতে ড্র হয়েছে তিনটি ম্যাচে। কিন্তু ম্যাচটা যখন আমেরিকায়, আর লড়াইটা ছিল মেসির কান্না, ইতিহাস বারবার পুনরাবৃত্তি করে। আরেকটি ইতিহাস যা তিনবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের পক্ষে। চিলির বর্তমান কোচ রিকার্ডো গার্সিয়ার বিপক্ষে পাঁচবার মুখোমুখি হতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা। আলবিসেলেস্তেরা তাদের আগের চার ম্যাচে কখনো হারেনি। এটি একটি দুর্দান্ত অনুপ্রেরণা, যেমন লিওনেল স্কালোনির দল যারা দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে।

এবারের কাপে কানাডার বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতলেও মেসির খেলায় সন্তুষ্ট হননি ভক্তরা। তবে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া-জুলিয়ান আলভারেজের আটলান্টার মার্সিডিজ-বেঞ্জ স্টেডিয়ামের কৃত্রিম টার্ফে খেলার তেমন অভিজ্ঞতা নেই। তবে নিউজার্সিতে মাঠটা সেরকম নয়, তাই কাতার বিশ্বকাপ থেকে চিলির বিপক্ষে আর্জেন্টিনাকে চেনা দেখা যাবে। আর এই ম্যাচ দিয়েই দেখা মিলবে মেসির পুরনো বার্সেলোনার সতীর্থ অ্যালেক্সিস সানচেজের। লড়াইকে তাই বলা যেতে পারে মেসি বনাম সানচেজ। এই ম্যাচটি চিলির জন্যও গুরুত্বপূর্ণ, যারা গ্রুপ এ-তে তাদের প্রথম ম্যাচে পেরুর সাথে গোলশূন্য ড্র করার পর কিছুটা চাপে ছিল। তারা হারলে ব্যাকফুটে চলে যাবে।

What's Your Reaction?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow