ইডিপাসের দেড় শ ও গ্রুপ থিয়েটার আন্দোলন নতুন কাঠামোর সন্ধানে

প্রকাশিত: ২৭শে ডিসেম্বর ২০১৯ ০৫:৩৭:০০ | আপডেট: ২৭শে ডিসেম্বর ২০১৯ ০৫:৩৯:২০ 6
ইডিপাসের দেড় শ ও গ্রুপ থিয়েটার আন্দোলন নতুন কাঠামোর সন্ধানে

সত্তরের দশকে শুরু হওয়া গ্রুপভিত্তিক নাটকটি এই শিল্পের সৃজনশীল এবং দায়বদ্ধতার ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান অব্যাহত রয়েছে। প্রেক্ষাপটে এবং প্রসঙ্গত চিন্তায়, বিশ্ব নাটকের পাশাপাশি বাংলা নাটকের নাটক, ইতিহাস ও পর্যালোচনাতে প্রচুর চিন্তাভাবনা লক্ষ্য করা যায়। তবে এই শিল্পের নতুন কাঠামো কী হতে পারে বা বেসিক থিয়েটার চিন্তাভাবনা, উন্নয়ন কী হতে পারে তা ভেবে দেখার সময় এসেছে time

থিয়েটার শো 'গ্রুপ থিয়েটার আন্দোলন নতুন কাঠামোর সন্ধানে' বক্তারা বক্তব্য রাখেন। শুক্রবার সকালে ত্রিভুজুল থিয়েটার আয়োজিত নাটকের তৃতীয় দিনে এই আলোচনা হয়। নাট্যকার রামেন্দু মজুমদার ও নাসির উদ্দিন ইউসুফ থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রাম (টিআইসি) আয়োজিত পাঁচ দিনের ট্রানজিট্রি থিয়েটারে নাট্য-চিন্তার থিম উপস্থাপন করেন।

এ উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নাট্যকাররা প্রেক্ষাগৃহে অংশ নিয়ে আলোচনা করেন। উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক আবদুস সেলিম, আফসার আহমেদ, মান হীরা, মল্লয় ভৌমিক, জিয়াউল হাসান কিসলু, দেব প্রসাদ দেবনাথ, গোলাম সরোয়ার, অলোক ঘোষ, এম সাইফুল আলম, আকবর রেজা, সানজিভ বড়ুয়া, তৌফিক হাসান, মোহাম্মদ। , অলোক বসু, দেবাশীষ ঘোষ, আকবর রেজা, বিক্রম চৌধুরী, আইরিন পারভিন, সাইদুর রহমান, মীর বরকত, কান্তাল বড়ুয়া, দুলাল দাশগুপ্ত, মোসলেম উদ্দিন সিকদার, আক্তারুজ্জামান, ওএন হীরা আন্তরিকভাবে আপনার, আলী আহমেদ মুকুল, শামীমা শওকত, খোরশেদুল আলম, আলী হায়দার, রওশন গার্ডেন, শামীম হাসান প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা আরও বলেছিলেন, "আমাদের নাট্যচর্চনের ইতিহাসে একটি বড় দুর্ভাগ্য রয়েছে, আমরা এত বেশি সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরেও জাতীয় রেপাটারি (পেশাদার নাট্যকারদের প্ল্যাটফর্ম) বা এর মতো কিছু করতে পারিনি। পাশ করে। " থিয়েটারকে আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক দিক বিবেচনা করে রাষ্ট্র ব্যবস্থা থেকে কোনও আশ্রয় দেওয়া। বক্তারা থিয়েটারের নান্দনিকতার কথা উল্লেখ করে বলেছিলেন যে নাটকের সাথে সম্পর্কিত ধারণা ও কাঠামো তৈরির ক্ষেত্রে নান্দনিকতা মূল বিষয়। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, বাংলাদেশ আর্ট একাডেমি, সংস্কৃতি মন্ত্রক অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারেন।

লগইন করুন


পাঠকের মন্তব্য ( 0 )